Duare Sarkar: আবার শুরু হতে চলেছে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প – কবে, কোথায়, কি কি প্রকল্প থাকবে জেনে নিন?

পুজো শেষ হলেই রাজ্যে দুয়ারে সরকার। এই মর্মে নির্দেশিকা জারি করলেন মুখ্যসচিব। ১ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে দুয়ারে সরকার। ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে দুয়ারে সরকার প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। ১ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প হবে। প্রতিটি কর্মসূচির সুবিধা দেওয়া হবে এই ‘দুয়ারে সরকার’-এর মাধ্যমে। ইতিমধ্যেই রাজ্যে চারটি পর্যায়ে দুয়ারে সরকার হয়ে গেছে। এই নিয়ে পঞ্চম দুয়ারে সরকার হতে চলেছে রাজ্যে। পঞ্চায়েত ভোটের আগেই আরও একবার দুয়ারে সরকার।

দুয়ারে সরকার ক্যাম্প

অন্যদিকে ‘দুয়ারে রেশন’ নিয়ে জল্পনা বাড়ছে৷ হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে রাজ্য। হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের অর্ডারের কপি পাওয়ার পরেই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাবে রাজ্যের খাদ্য দফতর। সূত্রের খবর, মূলত হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চের অর্ডারের কপি এবং দুয়ারে রেশন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের যে পর্যবেক্ষণ ছিল, তা তুলে ধরবে রাজ্য। রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে প্রায় 8 কোটি মানুষ দুয়ারের রেশনের ফলে সুবিধা পাচ্ছেন। প্রয়োজনে দুয়ারে রেশন এর নিয়মে কিছু পরিবর্তন বা সংশোধন করা হতে পারে, সুপ্রিম কোর্টে তা জানাবে রাজ্য। তবে দুয়ারে রেশন প্রকল্প রাজ্য বন্ধ করতে চাইছে না, নবান্নের তরফে তা স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের খাদ্য দফতরকে।

দুয়ারে সরকার ক্যাম্প

রাজ্যের ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্পকে অবৈধ ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট। আদালতের তরফে বলা হয়েছে, এই প্রকল্প ‘জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইন- ২০১৩’-এর পরিপন্থী। আদালতের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে৷ হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের সেই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ জানিয়েই সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে রাজ্য।

দুয়ারে সরকার (Duare Sarkar) ক্যাম্পে কোন কোন সুবিধা পাবেন?

যেদিন আদালতে (Calcutta High Court) দুয়ারে রেশন (Duare Ration) নিয়ে অস্বস্তিতে পড়তে হল রাজ্য সরকারকে, ঠিক সেদিনই জারি করা হল দুয়ারে সরকার (Duare Sarkar) কর্মসূচির বিজ্ঞপ্তি (Notice) ৷ উল্লেখ্য, বুধবারই মহামান্য কলকাতা হাইকোর্ট তার পর্যবেক্ষণে জানিয়েছে, দুয়ারে রেশন প্রকল্প কেন্দ্রের খাদ্য সুরক্ষা নীতির পরিপন্থী ৷ আর এদিনই নবান্নের (Nabanna) তরফে জারি করা হল, দুয়ারে সরকারের বিজ্ঞপ্তি ৷ উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) আগেই ঘোষণা করেছিলেন, পুজোর পরই রাজ্যে ফের দুয়ারে সরকারের শিবির শুরু হবে ৷ বুধবার সেই ঘোষণা অনুসারেই প্রকাশিত হল বিজ্ঞপ্তি ৷ তাতে জানানো হয়েছে, পুজোর পরের মাসেই শুরু হবে বছর শেষের দুয়ারে সরকার ৷

এদিন নবান্নের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট ভাষায় বলা হয়েছে, আগামী 1 নভেম্বর থেকে 15 নভেম্বর পর্যন্ত চলবে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প ৷ সংশ্লিষ্ট শিবিরগুলিকে মোট 25টি পরিষেবা পাওয়া যাবে ৷ এর মধ্যে রয়েছে খাদ্য সাথী, স্বাস্থ্য সাথী, শিক্ষাশ্রী, তপশিলি বন্ধু, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, মানবিক, কৃষক বন্ধু, ঐক্যশ্রী, লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড-সহ একাধিক রাজ্য সরকারি জনকল্য়াণমুখী প্রকল্পের জন্য নাম নথিভুক্ত করার সুযোগ ৷ নবান্নের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এই দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকেই স্বনির্ভর গোষ্ঠীর ক্রেডিট লিংক, তাঁতিদের জন্য ক্রেডিট কার্ড প্রদান, মৎস্যজীবীদের নাম নথিভুক্তিকরণ এবং জাতি শংসাপত্র প্রদানের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবাগুলি দেওয়া হবে ৷

যেকোনও সরকারি পরিষেবা পেতে সংশ্লিষ্ট দফতরের কার্যালয়ে যেতে হত ৷ নানা কারণে সকলের পক্ষে তা সম্ভব নয় ৷ তাছাড়া, সরকারি কার্যালয়ের এক দফতর থেকে অন্য দফতরে ঘুরতে গিয়ে মানুষকে হয়রানও হতে হত ৷ মানুষের এই হয়রানি দূর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েই দুয়ারে সরকার প্রকল্প চালু করে রাজ্যের বর্তমান সরকার ৷ সাধারণত, নির্দিষ্ট একটি সময়ের মধ্যে সারা রাজ্যে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প বসে ৷ নাগরিকের বাসস্থানের নিকটবর্তী কোনও স্কুলে বা গ্রামাঞ্চলে পঞ্চায়েত কার্যালয়ে এই শিবির হয় ৷ ইতিমধ্যেই এই প্রকল্প সাধারণ মানুষের মধ্যে যথেষ্ট জনপ্রিয় হয়েছে ৷

এদিকে, একের পর এক দুর্নীতির জেরে রাজ্য সরকারের ভাবমূর্তি কিছুটা হলেও ধাক্কা খেয়েছে ৷ এমন একটি প্রতিকূল সময়ে ফের একবার দুয়ারে সরকার ক্যাম্পের মাধ্যমে নাগরিকদের আস্থা ফিরে পেতে চাইছে রাজ্য প্রশাসন তথা শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ৷ এমনটাই মত ওয়াকিবহাল মহলের ৷

Duare Sarkar Homepage Click Here

Leave a Comment